প্রত্যেক দেশের রাজধানীর নাম জানে এই শিশু !

বয়স একুশ মাস। তার কাছে কোনো দেশ বা শহর সম্পর্কে জানতে চাইলে সে অকপটে বলে দেবে। এই বিস্ময়কর শিশুর নাম ময়ূখ বর্মন। থাকেন ভারতের উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া ব্লকের সীমান্তবর্তী এলাকা দাসপাড়ায়।ময়ূখ বর্মনের বয়সী শিশুরা কথাই বলতে পারেন না। কিন্তু এই শিশু কোনো ভাবনা চিন্তা ছাড়াই বিশ্বের নানা দেশের নাম সহ রাজধানীর নাম বলে দেয়।এমনকী ভারতে জাতীয় খেলা থেকে শুরু করে জাতীয় ফলের নামও জানে সে। সেটা শুনতে কৌতুহলীদের ভিড় তার বাড়ির উঠোনে।

চোপড়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মহম্মদ আজারুদ্দিন বলেন, শুনে প্রথমে বিশ্বাস করতে পারিনি। নিজেই দাসপাড়ার বাড়িতে চলে যাই। সেখানে ওই শিশুর কথা শুনে অবাক। ভারতসহ বিভিন্ন দেশের রাজধানীর নাম নির্ভুল বলছে। দেশের প্রধানমন্ত্রী, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নামও বলে দিচ্ছে।শিশুটির বাবা রাজু বর্মন পেশায় চিত্রশিল্পী। চোপড়া বাজারে সাইনবোর্ড লিখে জীবিকা নির্বাহ করেন। মা মীনাদেবী অঙ্গনওয়াড়ির কর্মী। তাদের মেয়ে ডালিয়া বর্মন দাসপাড়া হাই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। কিন্তু কেমন করে এটা সম্ভব জানা নেই পরিবারের লোকজনের। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এরকম মেধাসম্পন্ন শিশু বাস্তবে বিরল। সাধারণত অটিজম আক্রান্ত শিশুদের ক্ষেত্রে এরকম স্মরণশক্তি দেখা যায়।

ডেলিভারি বক্স খুলে অবাক হলেন স্ত্রী স্ত্রীর জন্মদিনে সারপ্রাইজ দিতে চেয়েছিলেন স্বামী। সারপ্রাইজে সত্যিই চমকে দিল স্ত্রীকে। জন্মদিনে এমন সারপ্রাইজ হয়তো আশা করেননি তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনার এমিলি ম্যাকগুয়ের অনলাইন শপিং করতে খুব ভালোবাসেন। প্রতি সপ্তাহেই তিনি কিছু না কিছু কেনেন অনলাইন শপিং করে। আর তার বেশিরভাগ কেনাকাটার উৎস অ্যামাজন। প্রায় প্রতি সপ্তাহেই অ্যামাজন থেকে বক্স আসে তার ঠিকানায়।

এমিলির জন্য তার জন্মদিনের সকালেও একটি ডেলিভারি বক্স পাঠায় অ্যামাজন। তাতে লেখা ছিল, এমিলি ম্যাকগুয়ের, ১২৩৪ বার্থ ডে লেন, হ্যাপি বার্থ ডে, ২ইউ। প্রথমে এমন আজব লেখা দেখে কিছুটা অবাক হয়েছিলেন এমিলি। তবে বক্স খোলার তাড়াহুড়োয় তিনি আর সেসব পাত্তা দেননি। বক্স খোলার সময়ই ঘটে আজব কাণ্ড! বক্স যেন ভেঙে ভেঙে হাতের আঙুলে লেগে যাচ্ছে। বক্সের সেই ভাঙা টুকরো মুখে তুলে এমিলি তাজ্জব! এ তো কেক! বক্স নয়! স্বামী তার জন্য এমন একখানা সারপ্রাইজ বক্স পাঠালেন! অ্যামাজন-এর ডেলিভারি বক্সের মতো দেখতে চকোলেট কেক! এমিলি স্বামীর এমন কাণ্ড ফেসবুকে শেয়ার করলেন। সে অদ্ভুত দর্শন কেক-এর ছবি মুহূর্তে ভাইরাল হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *